Top News

নিজের চ্যানেলে বিভিন্ন কনটেন্ট চালিয়ে অর্থ উপার্জনে জনপ্রিয় হচ্ছে গুগলের ভিডিও শেয়ারিং সাইট ইউটিউব। নামে-বেনামে অন্যদের ভিডিও আপলোড করে অর্থ আয় করছে অনেকে। তাই এ ধরনের হয়রানি বা প্রতারণা বন্ধে নতুন নীতিমালা তৈরি করেছে প্রতিষ্ঠানটি। এক্ষেত্রে নিজেদের চ্যানেল থেকে অর্থ আয় করতে কমপক্ষে ১০ হাজার ভিউ পেতে হবে।



ইউটিউবের কমিউনিটি গাইড লাইন সম্পর্ক জানতে নিচের লিংক

সেখানে আরও বলা হয়, মূলত একজনের ভিডিও অন্যজনের চ্যানেলে পুনরায় আপলোড করে অনেকেই অর্থ উপার্জন পুনরায় আপলোড করে অনেকেই অর্থ উপার্জন করছে। এ ধরনের প্রতারণা ও হয়রানি রোধে বধিত ইউটিউব অংশীদারিত্ব প্রোগ্রাম এ সিদ্ধান্ত নিয়েছ। ১০ হাজার ভিউ হওয়ার পর ইউটিউব যাচাই করে দেখবে কনটেন্টটি। যদি তা ইউটিউবের সব নীতি মেনে চলে, তবেই তাতে বিজ্ঞাপন দেওয়া হবে। তবে এর আগে ১০ হাজার ভিউ পাওয়ার আগেই কোন চ্যানেল অর্থ উপার্জন করে থাকলে নতুন নীতিমালার কারণে তাতে কোনো প্রভাব পড়বে না। নতুন কেউ ইউটিউবার হতে চাইলে তাকেও ইউটিউবের যাচাই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে।

ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রাম চালু হয় ২০০৭ সালে। তখন থেকেই অনেক ভিডিও নির্মাতা বিজ্ঞাপনের বদৌলতে নিজেদের কনটেন্ট ব্যবহার করে অর্থ উপার্জন করত। ফলে অনেকেই ইউটিউব চ্যানেল খুলে বড় অংকের অর্থ উপার্জনে সমর্থ হয়। তবে ধর্ষণ সমর্থক, ইহুদিবিদ্বেষ আর ঘৃণা প্রচারকদের তহবিল জোগাতে ব্যবহৃত হচ্ছে কিছু বিজ্ঞাপন- সম্প্রতি এমন অভিযোগের মুখে পড়ে ইউটিউব। ফলে গুগল সার্চ থেকে আড়াই শতাধিক প্রতিষ্ঠান তাদের বিজ্ঞাপন সরিয়ে নেয়।

নতুন নীতিমালা বাস্তবায়িত হলে ভিডিও নির্মাতা ও বিজ্ঞাপনদাতা উভয়ের স্বার্থিই সুরক্ষা পাবে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি শহরে ইউটিউব টিভিও চালু হয়েছে। এ টিভি বিনামূল্যে ৩০ দিন পর্যন্ত দেখা যাবে। তবে পরবর্তী সময়ে দেখতে চাইলে মাসিক ৩৫ ডলার খরচ করতে হবে।

গতকাল (১৪/০৩/২০১৭) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. আরেফিন সিদ্দিক সরকারি তিতুমীর কলেজের এক অনুষ্ঠানে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় সম্বন্ধে উল্লিখিত শিরোনামে যে বক্তব্য রেখেছেন এবং যা ১৫/০৩/২০১৭ তারিখ বিভিন্ন দৈনিকে প্রকাশিত হয়েছে, তা সম্পূর্ণ অসত্য, মনগড়া, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও বিদ্বেষপ্রসূত। এ বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বক্তব্য নিম্নরূপ:

“দেশের বৃহত্তম বিশ্ববিদ্যালয় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় বর্তমানে প্রায় সম্পূর্ণ অনলাইনের মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে এবং পরীক্ষা গ্রহণ ও ফল প্রকাশসহ এর যাবতীয় কর্মকা- অত্যন্ত স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার সাথে সম্পন্ন হচ্ছে। পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়ণ না করে ফল প্রকাশের প্রশ্নই উঠেনা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য “খাতা না দেখেই চূড়ান্ত ফল দেয় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়” মর্মে উল্লিখিত অনুষ্ঠানে যে মন্তব্য করেছেন, সে সম্বন্ধে তিনি কোন শিক্ষাবর্ষের, কোন পরীক্ষার, কোন বিষয়ে ফল প্রকাশ হয়েছে, এর সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য-প্রমাণ উপস্থাপন করেননি।

অপর একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাপারে ঢালাওভাবে মনগড়া এরূপ বক্তব্য প্রদান একজন উপাচার্যের দায়িত্বশীল পদে আসীন ব্যক্তির পক্ষে কতদূর সমীচীন, তা কারো পক্ষে না বুঝার কথা নয়।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য যে একজন চরম জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় বিদ্বেষী, তাঁর এ বক্তব্য থেকে সেটি স্পষ্ট। ড. আরেফিন সিদ্দিককে তাঁর বক্তব্যের সমর্থনে সুনির্দিষ্ট তথ্য-প্রমাণ উপস্থাপনের জন্য চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেয়া হলো।
অন্যথায়, তাঁর এ ধরনের অসত্য, মনগড়া, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্যের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য হবে।”
no image
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৬ সালের অনার্স ৩য় বর্ষের ফরম পূরণ শুরু ৮ জানুয়ারি থেকে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ, তথ্য ও পরামর্শ দফতরের পরিচালক জনাব ফয়জুর করিম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়।
বিস্তারিত তথ্য জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইট www.nu.edu.bd এবং www.nubd.info/honours থেকে জানা যাবে।



জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তন আগামী ১৭ জানুয়ারি। ওই দিন বিকেল তিনটায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এই সমাবর্তনের অনুষ্ঠান হবে। আজ বুধবার ধানমন্ডিতে অবস্থিত বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ক্যাম্পাসে এক সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য হারুন-অর-রশিদ এ তথ্য জানান।
উপাচার্য জানান, সমাবর্তনে ১৯৯৮ সাল থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত সময়ে উত্তীর্ণ স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারীরা অংশ নেবেন। মোট চার হাজার ৯৩২ জন সমাবর্তনে অংশ নেওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছেন। সমাবর্তনের সভাপতিত্ব করবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।
অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ও সমাবর্তন বক্তা হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান বক্তৃতা করবেন।
উপাচার্য হারুন অর রশিদ বলেন, অংশগ্রহণকারীরা ১৩,১৪ ও ১৫ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর কার্যালয় থেকে সমাবর্তনের গাউন সংগ্রহ করতে পারবেন। এ ছাড়া সমাবর্তন উপলক্ষে ১২ জানুয়ারি রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরের সামনে থেকে একটি শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সহউপাচার্য আসলাম ভূঁইয়া, হাফিজ মো. বাবু, কোষাধ্যক্ষ নোমান-উর-রশীদ।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ, তথ্য ও পরামর্শ দফতরের পরিচালক জনাব মোঃ ফয়জুল করিম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। আগামী ০৩ রা জানুয়ারী, ২০১৭ইং তারিখ থেকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মান ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষা শুরু।